ঢাকা, মঙ্গলবার - ১৬ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আলোচিত সংবাদ

ম্যাক্সের ডাক্তার-নার্স কোয়ারেন্টাইনে

[print_link]

Share on facebook
Share on whatsapp
Share on twitter
Share on linkedin

চট্টগ্রামে নতুন করে ১১ ব্যক্তির শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার ঘটনায় জেলা ও নগরীর আরো ৬টি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল) রাতেই। বোয়ালখালীতে সরোয়াতলী ইউনিয়নে ১টি, সাতকানিয়ার পশ্চিম ঢেমশায় ৪টি এবং নগরীর কাতালগঞ্জে একটি বাড়ি লকডাউন করা হয়। পাশাপাশি ম্যাক্স হসপিটালের সিসিইউতে কর্মরত একাধিক চিকিৎসক ও নার্সকে হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হচ্ছে।

১১ নতুন সংক্রমিত ব্যক্তির মধ্যে ৫ জন চট্টগ্রাম শহরের। চারজনই একই পরিবারের। ওই পরিবারের প্রধান ব্যক্তির ১১ এপ্রিল করোনা শনাক্ত হলে পাহাড়তলী থানার পাশে ওই ভবনটি লকডাউন করা হয়। মঙ্গলবার রাতে লকডাউনে থাকা বাড়ি থেকে নতুন আক্রান্ত চারজনকে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে স্থানান্তর করা হয়।

আরও পড়ুন  চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের ফুলেল শুভেচ্ছা

কাতালগঞ্জ আবাসিক এলাকার বাসিন্দা এক তরুণ চিকিৎসকের করোনা পজিটিভ আসায় চিকিৎসকের বাসস্থান ওই বাড়িটিও লকডাউন করে চট্টগ্রাম নগর পুলিশ। রাতেই তাকে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে স্থানান্তর করা হয়। এই চিকিৎসক বাঁশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত। এ ছাড়াও তিনি টেলিমেডিসিন সেবাও দিয়ে আসছিলেন করোনা পরিস্থিতিতে।

বোয়ালখালীর সরোয়াতলী ইউনিয়নের এক ব্যক্তি করোনা লক্ষণ নিয়ে নগরীর ম্যাক্স হাসপাতালে সিসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন। ম্যাক্স হাসপাতালে থাকতেই তার শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়। মঙ্গলবার সকালে তিনি ম্যাক্স ত্যাগ করলেও রাতে তার করোনা পজিটিভ আসে। রাতেই বোয়ালখালী থানা পুলিশ গিয়ে তার বাড়ি লকডাউন করে তাকে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে পাঠানো অ্যাম্বুলেন্সে তুলে দেন জেনারেল হাসপাতালের উদ্দেশ্যে।

আরও পড়ুন  চট্টগ্রামে আজ ১৩ জন করোনায় আক্রান্ত

সাতকানিয়ার নতুন আক্রান্ত ৫ জনের একজন করোনায় চট্টগ্রামে প্রথম মৃত ব্যক্তি সিরাজুল ইসলামের ছেলে। ওই বাড়ি ১১ এপ্রিল থেকে লকডাউন আছে। অপর চার জনের দুই জন ওই ছেলের বন্ধু। একজন সিএনজি চালক, অপরজন গ্রাম পুলিশ।

সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুর এ আলম জানান, রাতেই নতুন করে ৪টি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। বুধবার উপজেলা প্রশাসনের সবাই বসে হয়তো পুরো উপজেলাই লকডাউন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে পারে বলেও জানান তিনি।

আলোচিত সংবাদ

এ বিভাগের আরও

সর্বশেষ