ঢাকা, রবিবার - ১৪ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আলোচিত সংবাদ

ত্রান নিয়ে নিশিরাতে লায়ন্স ক্লাব অব চিটাগাং মেট্রোপলিটন

[print_link]

Share on facebook
Share on whatsapp
Share on twitter
Share on linkedin

খেটে খাওয়া মানুষের পাশে রাতের আঁধারে ত্রান বিতরণ করেছেন লায়ন্স ক্লাব অব চিটাগাং মেট্রোপলিটন। নগরীর তুলাতলী বস্তিতে ১৯ কেজি করে ত্রাণসামগ্রী ভরা বস্তা বিলি করেছে লায়ন্স ক্লাব অব চিটাগাং মেট্রোপলিটন।

সোমবার (৩০ মার্চ) দিবাগত রাতে চাল, ডাল, আটা, আলু, পেঁয়াজ, তেল, লবন ইত্যাদি বিলি করা হয়।

ক্লাবের সভাপতি, দৈনিক আজাদীর চিফ রিপোর্টার হাসান আকবর এ প্রসঙ্গে ফেসবুকে লিখেছেনঃ

জয় হোক মানবতার…..
ঘড়ির কাঁটা মধ্যরাত পার হয়েছে বেশ আগে। তুলাতলী বস্তীতে ঘুটঘুটে অন্ধকার। বাসা নামের ছোট ছোট খুপরিগুলোতে সাত রাজ্যের নিরবতা। কোথাও যেন কেউ নেই। কোন আশা নেই। স্বপ্ন নেই। আনন্দ নেই। করোনার চেয়ে ভয়াল হয়ে দেখা দেয়া ক্ষুধায় কাতর অসংখ্য নারী পুরুষ। কারো কাজ নেই। কোথাও যাওয়ার সুযোগ নেই। চিরচেনা চারপাশ নিদারুণভাবে অচেনা। নিশীরাতের এমন বিবর্ন সময়ে শহরের অন্যতম ঘনবসতিপূর্ণ এই বস্তীর এক একটি ঘরের টিনের দরোজায় টোকা পড়তে শুরু করে। বেশ কিছুক্ষণ। কোন সাড়া নেই। বাড়লো দরজার করাঘাত। সাথে ফিসফিসিয়ে ডাকাডাকি।কাঁচা ঘুমে জেগে উঠে এক একজন মানুষ। চোখে মুখে রাজ্যের বিরক্তি নিয়ে খোলা হয় দরজা। ঘুম ভাঙা মাঝরাত্তীরে আচমকা চোখের সামনে দেখা দেয় ‌কয়েকজন অচিন মানুষ। ভড়কে যায় খুপরিবাসী। এত অচিন লোক কেন? মনে মনে কিছুটা ভয়ও তাড়া করে।কি হয়েছে? কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই লোকটির হাতে তুলে দেয়া হয় বড়সড় একটি বস্তা। খাদ্যসামগ্রি ভর্তি বেশ ভারী বস্তা। চাল ডাল আটা আলু পেঁয়াজ তেল নুনসহ ১৯ কেজি ভোগ্য পণ্য এক একটি বস্তায়। এভাবে চলতে থাকে ঘর থেকে ঘরে। খুপরি থেকে খুপরিতে। একদল অচেনা লোক বস্তা বস্তা খাবার বিলুতে থাকে। তাদের চোখে প্রশান্তি। দেয়ার আনন্দ তাদের অন্তরজুড়ে। অপরদিকে বস্তীবাসীর চোখে মুখে হাসি ফুটে উঠে। অন্যরকম তৃপ্তির হাসি ভর করে এক একজন মানুষের মুখে মুখে। হ্যাঁ, এই হাসির জন্যই কাজ করেন লায়ন সদস্যরা। এই হাসির তরে সেবার ফেরি করেন এক একজন লায়ন সদস্য। গতরাত ১টা নাগাদ লায়ন্স ক্লাব অফ চিটাগাং মেট্রোপলিটন এভাবে ভোগ্যপণ্য তুলে দেয় ঘরবন্দি কয়েকশ’ মানুষের হাতে। তুলাতলী বস্তীর ঘরে ঘরে পৌঁছে দেয়া হয় প্রায় তিন টন খাবার। ট্রাক বোঝাই করে নিয়ে যাওয়া এসব ভোগ্যপণ্য বিতরনকালে শুলকবহর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ মোরশেদুল আলম এবং খুলশী থানা পুলিশ বিশেষভাবে সহায়তা করে।
জয়তু লায়নিজম, জয়তু বাংলাদেশ।
হাসান আকবর জানান, কয়েকশত পরিবারে আমরা ত্রাণসামগ্রী দিয়েছি। সব মিলে প্রায় তিন টন খাবার। আমরা স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ মোরশেদু আলম ও খুলশী থানা পুলিশের প্রতি ত্রাণ বিতরণে সহযোগিতার জন্য কৃতজ্ঞতা জানাই।

ত্রাণ বিতরণের সময় উপস্থিত ছিলেন ক্লাবের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মোরশেদুল হক চৌধুরী, সেক্রেটারি ফজলে করিম, লায়ন আওরঙ্গজেব, লিও আনোয়ারুল ইসলাম চৌধুরী, ইসমাইল আলভী প্রমুখ।

আরও পড়ুন  প্রার্থীদের পক্ষে শুভেচ্ছা বাণী উপকরণ অপসারণের নির্দেশ

আলোচিত সংবাদ

এ বিভাগের আরও

সর্বশেষ